Blogs

এডসেন্স এর বিকল্প পদ্ধতি কি?

যাদের ওয়েবসাইট বা ব্লোগ রয়েছে তাদের প্রথম পছন্দ গুগল এডসেন্স।গুগল এডসেন্স খুব ভাল একটি বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা।এর ক্লিক রেট অনেক বেশী।যদি আপনার একটি ভাল মানের ওয়েবসাইট বা ব্লোগ থাকে যা গুগল এডসেন্স এর ভাষা সাপোর্ট করে,বিভিন্ন দেশের ভিজিটরের আগমন ঘটে বিশেষ করে উন্নত দেশগুলো থেকে,দামি মানের কিওয়ার্ড ঠিক ঠিক জায়গামত থাকে, মোটামুটি দিনে ১০০০+ ইউনিক ভিজিটর আপনার সাইট ভিজিট করে এবং এড ঠিকমত সেটআপ দিতে পারেন এতেই আপনাকে আটকানো যাবে না।গুগল এডসেন্স এমনই একটি বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা!!!!!

কিন্তু সমস্যা অনেক!!!কোন দুর্বল মার্কা ওয়েবসাইট বা ব্লোগ হলে সে ওয়েবসাইট বা ব্লোগ দিয়ে গুগল এডসেন্স পাওয়াই যাবে না।যদি একটু বুদ্ধি খাটানো যায় তাহলে হয়ত প্রথমবারের মত ইউটিউব দিয়ে এডসেন্স পাওয়া যেতে পারে।কিন্তু ব্যবহার করবেন কোথায় সেই দুর্বল মার্কাতেই তো তাইনা!!! তাহলে তো আপনার দুঃখ আরও বেড়ে যাবে,কষ্ট করে পাওয়া এডসেন্স ব্যান হয়ে যেতে পারে।গুগল এডসেন্স যদি আপনাকে দয়ার চোখে না দেখে তাহলে অবশ্যই কিছু কারন পেলেই আপনার একাউন্ট ব্যান হয়ে যেতে পারে।

ইচ্ছায় ,অনিচ্ছায়,ভুলে,লোভে পড়ে,টেস্ট করতে অথবা অন্য কোন কারনে নিজের এডে নিজে ক্লিক করলে।

অন্যের জিনিস কপি করে নিজের ব্লোগ বা ওয়েবসাইটে ব্যবহার করা শুরু করলে।অথবা কপিরাইট ভঙ্গ করলে।

পর্ন জাতীয় কনটেন্ট,পিকচার,ফটো,ভিডিও এ জাতীয় কিছু পেলে।

তাদের রয়েছে জটিল কঠিন সব নীতিমালা।এসমস্ত কারনে সবার পক্ষে এডসেন্স ব্যবহার করা হয় না।বিশেষ করে বাংলা ওয়েবসাইট বা ব্লোগ গুলো এ ক্ষেত্রে একপ্রকার নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।তাই সবাই ছুটাছুটি করছে বিকল্প ব্যবস্থা তালাশ করার জন্য।এডসেন্স এর হাজারো বিকল্প আছে কিন্তু কাজের কাজ হয় না, মানে ভাল বিকল্প নয়।কোনটার এড সাইজ ভাল না,কোনটার পেমেন্ট সিস্টেম ভাল না,কোনটার ওপর বিশ্বাস আনাই মুশকিল(যেমন-Amaderad.com নামের একটি বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা সবাইকে ধোকা দিয়ে পালিয়েছে ময়দান থেকে)

রিভেনুহিটস(আশার আলো)
বর্তমান সময়ে যে বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা গুগল এডসেন্স এর প্রধান বিকল্প হিসাবে কাজ করে যাচ্ছে তা হল রিভেনুহিটস ডট কম।সবদিক থেকেই উন্নত মানের সেবা।মনে হয় আশার আলো নিয়ে এসেছে এই এড নেটওয়ার্কটি।বিশেষ করে বাংলা ভাষায় পরিচালিত ওয়েবসাইট বা ব্লোগ গুলোর জন্য।

রিভেনুহিটস এর জন্য কেমন ওয়েবসাইট দরকার?
রিভেনুহিটস যে কোন ধরনের ওয়েবসাইট বা ব্লোগের জন্য এড দিয়ে থাকে তাদের কোন কঠিন নিয়ম নেই।এডসেন্স কপি-পেস্ট ব্লোগ বা ওয়েবসাইট,পর্ন রিলেটেড ওয়েবসাইট সাপোর্ট করে না কিন্তু রিভেনুহিটস এসবে সমস্যা করে না।
এছাড়াও এডসেন্স এ ব্লোগ কিংবা ওয়েবের বয়স বাধা হয়ে দাড়ায়, নতুন ব্লোগ বা ওয়েবসাইট তারা গ্রহন করে না কিন্তু রিভেনুহিটস যে কোন ব্লোগ বা ওয়েবসাইটকেই সাদরে গ্রহন করে।
কিসের মাধ্যমে পেমেন্ট নেয়া যায়?
১.পেপল। ২.পেওনিয়ার। ৩.ব্যাংক চেক।

সর্বনিম্ন কত ডলার হলে পেমেন্ট নেয়া যায়?
আপনার একাউন্টে সর্বনিম্ন ২০ ডলার হলে পেপল অথবা পেওনিয়ারে পেমেন্ট নিতে পারবেন।আর সর্বনিম্ন ৫০০ ডলার হলে ব্যাংক চেক নিতে পারবেন।

রিভেনুহিটস অন্য এড ব্যবহার করতে দেয় কি না?
রিভেনুহিটস ব্যবহার করার পাশাপাশি একই ব্লোগ বা ওয়েবসাইটে অন্য বিজ্ঞাপন কোম্পানির এড বা বিজ্ঞাপন ব্যবহার করা যায় এতে কোন ধরনের সমস্যা হয় না।
তাদের এড সিস্টেম কেমন?
তাদের এড সিস্টেম অনেক সুন্দর।তাদের বিভিন্ন সাইজের ব্যানার এড রয়েছে।
এছাড়া ৭২৮*৯০ এবং ৪৬৮*৬০ সাইজের অটো ফুটার এড রয়েছে।
তারা ডেস্কটপ এবং মোবাইল উভয় ধরনের এড তৈরির ব্যবস্থা রেখেছে।
এছাড়াও পপআনডার,শাডোবস্ক,স্লাইডার সহ বিভিন্ন ধরনের নিত্যনতুন পদ্ধতির বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা রয়েছে তাদের।

কিছু আলাদা সুবিধা যা এডসেন্স এর জন্য অসুবিধা:
এডসেন্স এ পিন ভেরিফাই করতে হয় যা বহু দিন সময় নেয়।রেভিনিউহিটস পিন বেরিফাই করে না।
এডসেন্স ফেক বা আনভেলিড ভিজিটর অথবা ক্লিক এর জন্য পে করে না বরং উল্টো ব্যান করে দেয়।রিভেনুহিটস এ বিষয়ে কোন ঝামেলা করে না।
ভুলে এডসেন্স এর কোন আইন না মানা হলে তারা সারা জীবনের জন্য একাউন্ট ব্যান করে দেয়।কিন্তু রিভেনুহিটস তা করে না।
রিভেনুহিটস এর ব্যতিক্রম নিয়ম:
রিভেনুহিটস এর একটা ব্যতিক্রম নিয়ম আছে তা হল দুদিন পরে তারা আর্নিং রিপোর্ট দেখায়।মানে হল আজকে প্রথম আপনি রিভেনুহিটস এ একাউন্ট খুলে আপনার ওয়েবসাইট কিংবা ব্লোগে এড বসালেন, কালকে রিভেনুহিটস এর একাউন্টে লগিন করলেন কত জমা হয়েছে দেখতে কিন্তু ইম্প্রেশন,ক্লিক,সিটিআর সবই দেখতে পেলেন কিন্তু রেভিনিউ নেই,রেভিনিউ দেখতে পেলেন আরও একদিন পর।
অনেকে আছে এটা বুঝতে না পেরে মনে করে এতগুলো ইম্প্রেশন,ক্লিক হল কিন্তু আর্ন নেই!আসলে দুদিন পরপর এটা দেখা যায়।
কিরকম আয় হতে পারে?
ধরুন আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লোগে থেকে দৈনিক২০০০ ভিজিটর আসে এবং ৬০০০ এর মত ইম্প্রেশন হয়।যদি সিপিএম রেইট ভাল হয় তাহলে দৈনিক ৫-৭ ডলারের মত ইনকাম হতে পারে।তাহলে মাসে ৫*৩০=১৫০ ডলার অর্থাৎ ১২,০০০ টাকা।কারও ক্ষেত্রে কম হতে পারে আবার কারও ক্ষেত্রে বেশী হতে পারে।এটা বিভিন্ন বিষয়ের ওপর নির্ভর করে যেমন- সিপিএম রেইট,দেশভিত্তিক ভিজিটর,হাই পেয়িং কিওয়ার্ড ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ের ওপর নির্ভর করে

social position

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *